dorud sharif er fojilot 10

নিশ্চয়ই আমার উপর দরূদ পাঠ তোমাদের গুনাহ ক্ষমার কারণ হবে

Dorud Sharif er Fojilot

দরুদ শরীফ সম্পর্কে সংকলিত হাদীস শরীফ-২৯২৯. মুহাম্মাদ ইবনে সালামাহ্ মুরাদিউ রহ:…… হযরত আব্দুল্লাহ্ ইব্‌ন আমর (রা:) থেকে বর্ণিত যে, তিনি রাসূলুল্লাহ স:- কে বলতে শুনেছেন: তোমরা যখন মুআয্‌যিনকে আযান দিতে শোন তখন তোমরাও তা বলবে যা সে বলেছে। এরপর আমার উপর দরুদ পাঠ করবে। যে ব্যক্তি আমার উপর একবার দরুদ পাঠ করবে, আল্লাহ্ তা’য়ালা তার উপর দশবার রহমত নাযিল করেন। এরপর আমার জন্য ওয়াসীলা এর দু‘আ করবে। এ হল জান্নাতের একটি বিশেষ স্থান। আল্লাহ্ তা’য়ালার বান্দাদের মধ্যে কেবল একজন ব্যতীত আর কেউ এর যোগ্য হবে না। আশা করি আমিই হব সেই ব্যক্তি। যে ব্যক্তি আমার জন্য ওয়াসীলা প্রার্থনা করবে, তার জন্য আমার শাফা‘আত ওয়াজিব (অবধারিত) হয়ে যাবে।
(মুসলিম শরীফ, ২য় খন্ড, পৃ:নং-১৩৭, সালাত অধ্যায়, হাদীস নং-৭৩৩, ইফাবা)

(তিরমিযী শরীফ, ৬ষ্ঠ খন্ড, পৃ:নং-২৪১-৪২, মানাকিব অধ্যায়, হাদীস নং-৩৬১৪,ইফাবা)
(নাসাঈ শরীফ, ১ম খন্ড, পৃ:নং- ৩১০, আযান অধ্যায়, হাদীস নং-৬৭৯, ইফাবা)
(উমদাতুল ক্বারী শরহে সহীহ বুখারী, ৮ম খন্ড, পৃ:নং-১২৬)
(মুসনাদে আহমাদ, ১ম খন্ড, পৃ:নং-৪৩৪,আযান ও ইকামত অধ্যায়, হাদীস নং-২৭৩, ইফাবা)
(জামেয়ে আল-আহাদীস, ৩য় খন্ড, পৃ:নং-২৫৩)
(জামেয়ে আল-কাবীর, ১ম খন্ড, পৃ:নং-২৪৯৬, হরফে হামঝা অনুচ্ছেদ)
(মুসনাদে সাহাবা, ৩১তম খন্ড,পৃ:নং-৩০১, মুসনাদে আব্দুল্লাহ্ ইবনে আব্বাস রা:পরি:)
(জামে‘য়েল উসূল ফি আহাদীসের রাসূল স:, ৯ম খন্ড, পৃ:নং-৩৮০)
(মুসনাদে জামে‘য়ে, ২৬তম খন্ড, পৃ:নং-৫৮, ৬নং অনুচ্ছেদ)
(মেশকাতুল মাসাবীহ, ২য় খন্ড, পৃ:নং-৭৩৯)
(মাওসূ‘আতু আত্রাফেল হাদীস, ১ম খন্ড, পৃ:নং-৬৩৫৬০)
(ফাতহুল বারী, ৩য় খন্ড, পৃ:নং-৪৬৮)
(ফাতহুল কাবীর, ১ম খন্ড, পৃ:নং-১১৫, হরফে হামঝা অনুচ্ছেদ)
(তাফসীরে মাজহারী, ১ম খন্ড, পৃ:নং -১৯১৯, তাফসীরে মাজহারী অনুচ্ছেদ)
এবং এছাড়া আরও অনেকগুলো হাদীস গ্রন্থে রয়েছে।

নিশ্চয়ই আমার উপর দরূদ পাঠ তোমাদের গুনাহ ক্ষমার কারণ হবে

দরুদ শরীফ সম্পর্কে সংকলিত হাদীস শরীফ-৩০৩০. হযরত হাসান ইবনে আলী রা: হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ্ স: বলেছেন: তোমরা আমার উপর বেশী বেশী দরূদ পাঠ করো, নিশ্চয়ই আমার উপর দরূদ পাঠ তোমাদের গুনাহ ক্ষমার কারণ হবে, আমার জন্য উচ্চ মর্যাদা এবং ওসীলা চাও সুতরাং আমাকে ওসীলা করলে আমি রবের কাছে তোমাদের জন্য শাফা’য়াত করবো।
(জামেয়ে আল-কাবীর, ১ম খন্ড, পৃ:নং-৪৬০০, হাদীস নং-৩৪, হরফে হামঝা পরি:)

(কানঝুল উম্মাল ফি সুনানেল আক্বওয়াল, ১ম খন্ড, পৃ:নং-৪৮৯, হাদীস নং-২১৪৩)
(ফাতহুল কাবীর, ১ম খন্ড, পৃ:নং-২১১, হাদীস নং-২৩০৩, হরফে হামঝা পরি:)
(ফায়জুল ক্বাদীর, ২য় খন্ড, পৃ:নং-১১২)
(জামে‘য়েস সগীর মিন হাদীসেল বাশীর, ১ম খন্ড, পৃ:নং-১০৮, হাদীস নং-১৪০৬)
(মাওসূ‘আতু আতরাফেল হাদীস, ১ম খন্ড, পৃ:নং-১২৬১৪)
(সুবুলুল হুদা ওয়ার রাশাদ ফি সীরাতে খয়রেন, দ্বাদশ খন্ড, পৃ:নং-৪১৪)

Dorud Sharif er Fojilot

দরুদ শরীফ সম্পর্কে সংকলিত হাদীস শরীফ-৩১৩১. আব্দুল মালিক ইবনে ইয়াহইয়া রহ:….. হযরত রুওয়াইফি ইবনে সাবিত আনসারী রা: থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, রাসূলুল্লাহ্ স: বলেছেন, যে ব্যক্তি বলে, হে আল্লাহ্ ! আপনি মুহাম্মাদ সা:-এর উপর করুনা বর্ষণ করুন এবং কিয়ামতের দিন তাঁকে (স:-কে) আপনার সর্বাধিক নিকটবর্তী ও মর্যাদাপূর্ণ স্থানে অধিষ্ঠিত করুন। তার জন্য আমার শাফা’আত ওয়াজিব হয়ে যায়।
(মুসনাদে আহমদ ইবনে হাম্বল, ৪র্থ খন্ড, পৃ:নং-১০৮, হাদীস নং-১৭০৩২)
(মুসনাদে আহমাদ, ২৮তম খন্ড, পৃ:নং-২০১, হাদীস নং-১৬৯৯১)
(মুসনাদে বাজ্জার, ১ম খন্ড,পৃ:নং৩৬১, হাদীস নং-২৩১৫)
(আত-তারগীব ওয়াত্-তারহীব, ২য় খন্ড, পৃ:নং৫৭৩, যিকর ও দু‘আ অধ্যায়, হাদীস নং-৩০, ইফাবা)
(জামে‘য়েল কাবীর, ১ম খন্ড, পৃ:নং-২৩৭৫৯, হাদীস নং-৫৫০৯, হরফে মীম অনুচ্ছেদ)
(আল-মু‘জামুল কাবীর, ৫ম খন্ড, পৃ:নং-২৫, হাদীস নং-৪৪৮০)
(কানঝুল উম্মাল ফি সুনানেল আক্বওয়াল, ১ম খন্ড, পৃ:নং-৪৯৭, হাদীস নং-২১৮৯)
(মাওসূ‘আতে আতরাফেল হাদীস, ১ম খন্ড, পৃ:নং-২৬৯৯৯৫, হরফে মীম অনুচ্ছেদ)
(সুবুলুল হুদা ওয়ার রাশাদ ফি সীরাতে খয়রেন, দ্বাদশ খন্ড, পৃ:নং-৪৩৫)
(মা‘রেফাতুস সাহাবা, ৭ম খন্ড, পৃ:নং-৪২৮, রুওয়াইফি ইবনে সাবিত আনসারী রা: পরি:)

Check Also

darood sarif er fazilot 14

প্রত্যেক দু‘আ পর্দায় আবৃত থাকে, যে পর্যন্ত না দরুদ পাঠ করা হয়

Darood Sarif er Fazilot ৪০. হযরত আলী রা: থেকে বর্ণিত। তিনি বলেছেনঃ প্রত্যেক দু‘আ পর্দায় …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *